সকাল-রাতে ত্বক পরিষ্কার

সকালে ঘুম থেকে উঠে মুখ ধোয়া। শুনলে মনে হবে, এ কথা বলার কী আছে। নতুন কোনো কথা তো না। তবে শীতের সকালে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করতে অনীহা লাগে। কোনো রকমে মুখ পরিষ্কার করেই বাইরে বেরিয়ে পড়তে হয়। গরমের দিনে তবু কিছুক্ষণ পর পর মুখে পানির ঝাপটা দেওয়া হয়। শীতে তাও করতে ইচ্ছে করে না। সে কারণে মুখে র্যাশ ও ব্রণের সমস্যা দেখা দেয় অনেক সময়।

রূপবিশেষজ্ঞদের মতে, ঠান্ডা থাকলেও মুখের ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। তা না হলে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেবে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। সে সময় অবশ্যই ত্বকের উপযোগী ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এরপর ত্বকের ধরন বুঝে ময়শ্চারাইজার লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করতে হবে। কিউবেলার স্বত্বাধিকারী ফারজানা মুন্নী বলেন, অনেকে ভাবেন শীতের দিনে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করলে ত্বকের আর্দ্রতা কমে যায়। ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়। এ ধারণা ঠিক নয়। সকালে ও রাতে ঘুমানোর আগে ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। তবে বাইরে থেকে যখনই ফিরবেন, মুখ তখন পরিষ্কার করলে রাতে আর পরিষ্কার না করলেও চলবে।

সারা দিন বাইরে থাকলে ধুলাবালি জমে মুখের ত্বকে। আবার শীতে যেহেতু বারবার পানির ঝাপটা দিতে ইচ্ছে করে না, ফলে ফেসিয়াল ওয়াইপস এ সময় কাজে লাগাতে পারেন। এর মাধ্যমে মুখ পরিষ্কারও থাকবে, মেকআপও লেপ্টে যাবে না। ঠান্ডারও ভয় নেই।

যাঁদের ত্বক তৈলাক্ত তাঁরাও ভাবেন, ময়শ্চারাইজার লোশন তাঁদের জন্য নয়। এটিও ঠিক নয়। তাঁরা পানিযুক্ত ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। তা না হলে ত্বক রুক্ষ হয়ে যাবে। এ ছাড়া শীতের সময় ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখার জন্য পাকা কলা পেস্ট করে লাগাতে পারেন। চাইলে কাঁচা হলুদের সঙ্গে মধু মিশিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।

মনে রাখতে হবে, মুখ ধোয়ার পর অবশ্যই ময়শ্চারাইজার লোশন বা ক্রিম লাগাতে হবে। বাইরে বের হওয়ার সময় সানস্ক্রিন লোশন ও ক্রিম ব্যবহার করতে হবে।

###