হাটহাজারীতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

মাহমুদ আল আজাদ, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ।।

হাটহাজারীতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ মার্চ) এ উপলক্ষে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় ও মেখল এলাকায় পিকেএসএফ-এর সহযোগিতায় সমৃদ্ধ কর্মসূচির আওতায় উন্নয়ন সংস্থা ঘাসফুল পৃথক পৃথক কর্মসূচির আয়োজন করে।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল র‌্যালী ও সচেতনতামূলক আলোচনা সভা। এবারের আন্তর্জাতিক নারী দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “সময় এখন নারীর : উন্নয়নে তারা, বদলে যাচ্ছে গ্রাম শহরে কর্ম-জীবন ধারা”।

হাটহাজারী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার উননেছা শিউলী। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম ও হাটহাজারী প্রেসক্লাব সভাপতি কেশব কুমার বড়ুয়া।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিয়াজ মোরশেদের সঞ্চালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছা: কানিজ তাজিয়া। পূর্বাহেৃ শ্লোগানসহ একটি র‌্যালি বের করা হয়। অপরদিকে পিকেএসএফ-এর সহযোগিতায় সমৃদ্ধ কর্মসূচির আওতায় সোশ্যাল অ্যাডভোকেসি এন্ড নলেজ ডেসিমিনেশন ইউনিট-এর আওতায় উন্নয়ন সংস্থা ঘাসফুল মেখল ইউনিয়নের ইছাপুর বাজারে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।

স্থানীয় একটি কমিনিউটি সেন্টারে আয়োজিত নারী দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ঘাসফুলের উপ-পরিচালক আবেদা বেগম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার উননেছা শিউলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছা: কানিজ তাজিয়া, মেখল ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিয়াজ মোরশেদ। ঘাসফুলের ব্যবস্থাপক নাছিরউদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তোলাওয়াত করেন আনোয়ার হোসেন। বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য মো: জসিম উদ্দিন। এ সময় গুমানমদ্দর্ন ইউনিয়ন ঘাসফুলের ব্যবস্থাপক মো: আরিফ ও ঘাসফুলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

এতে বক্তা বলেন, নারীর সমতা আনয়নের জন্য ১৮৫৭ সালে নারী দিবসের সূচনা করা হয়। বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের আগে জাতীসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক নারী দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের আয়োজন শুরু করেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিবছর নারী সমাজকে সচেতন করতে এবং মহিলাদের সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে নেয়ার জন্য আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা হচ্ছে।

Similar Posts

error: Content is protected !!