বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৮ম শ্রেণীর লিজা আক্তার

সংবাদদাতা ।।
নিকলী উপজেলার জারইতলা ইউনিয়নের রোদার পুড্ডা (আগলাবাড়ী) গ্রামের আলাল মিয়ার মেয়ে শহীদ স্মরণিকা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী লিজা আক্তারকে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা করলেন নিকলী থানা পুলিশ ও বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক। এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (১১-৮-১৫) বিয়ের দিন বরপ ও মেহমানদের রান্নাবান্নার কাজে বাড়ির লোকজন ব্যস্ত থাকার সময় স্কুলছাত্রী লিজা আক্তার বাড়ি থেকে পালিয়ে থানার ওসি একেএম মাহবুব আলমকে বিয়ের ঘটনা খুলে বলেন। সাথে সাথে এসআই মোবারক হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স ও শহীদ স্মরণিকা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সন্তোষ কুমার দাসকে সাথে নিয়ে বর আসার আগে বিয়ে বাড়িতে যান। ছাত্রীর বাবা আলাল মিয়াকে বুঝিয়ে বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দেন। জারুইতলা ইউনিয়নের ধারিশ্বর গ্রামের মৃত মালু হোসেনের ছেলে অটোরিক্সাচালক মোহাম্মদ বাছিরের সাথে লিজা আক্তারের (১৩) বিয়ে আনুষ্ঠানিকতার কথা ছিল। নিকলী শহীদ স্মরণিকা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: সাফি উদ্দিন এই প্রতিনিধিকে জানান, লিজা আক্তার ৫ম শ্রেণীর সমাপনী পরীায় বৃত্তি পেয়েছিল।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!