লেবানন থেকে দেশে ফিরছেন ২১০ অবৈধ বাংলাদেশি

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

লেবানন থেকে বিনা জরিমানায় দেশে ফিরছেন দেশটিতে অবৈধ হয়ে পড়া ২১০ বাংলাদেশি, এর মধ্যে ১৩ জন অসুস্থ প্রবাসীও রয়েছেন। চলতি মাসের ২২, ২৬, ২৭ ও ২৮ তারিখ বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় কাতার এয়ারলাইন্সে করে তাদের বাংলাদেশে পাঠানো হবে বলে জানান বৈরুতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।

তিনি বলেন, “অবৈধ প্রবাসীদের বৈধ করার ব্যাপারে গত আট মাস ধরেই আমরা লেবানন প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ে আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। গত কয়েক মাস আগে লেবাননে জাতীয় নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। তবে এখনো সরকার গঠিত হয়নি। আশা করছি নতুন সরকার গঠনের পর প্রবাসীদের বৈধতা দেয়ার আলোচনা আরও এগুবে।”

প্রবাসীরা জানান, গত ১০-১৫ বছর ধরে লেবাননে অনেক বাংলাদেশি অবৈধভাবে বসবাস করছেন। দেশে যেতে চাইলেও নানা আইনি জটিলতায় যেতে পারছিলেন না তারা। এছাড়া প্রত্যেক পুরুষ কর্মীকে বছরে ২৭০ মার্কিন ডলার ও নারী কর্মীকে ২০০ মার্কিন ডলার জরিমানা দিয়ে দেশে যেতে হয়। অবৈধ প্রবাসীদের পক্ষে প্রতিবছর জরিমানার এ টাকা যোগাড় করা কঠিন।

এদিকে অবৈধ বাংলাদেশিদের বৈধ করতে বাংলাদেশ দূতাবাস ‘আন্তরিকতার সঙ্গেই কাজ করছে’ বলে জানান রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।

তিনি জানান, ২০১৬ সালে বৈরুত দূতাবাস অবৈধ প্রবাসীদের নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দূতাবাসে নাম লিপিবদ্ধ করার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। আবেদনে সাড়া দিয়ে প্রায় চার হাজার দুইশ’ প্রবাসী দূতাবাসে নাম নিবন্ধন করেন। এর মধ্যে থেকে তিন হাজার নয়শ’ অবৈধ প্রবাসীকে জরিমানা ছাড়াই শুধু বিমান টিকেটের টাকা পরিশোধ করে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

নিবন্ধিত সব অবৈধ প্রবাসীকে পর্যায়ক্রমে দেশে পাঠানো হচ্ছে বলে জানায় বাংলাদেশ দূতাবাস। এদের মধ্যে যেসব প্রবাসীর সঙ্গে সন্তান রয়েছে বা যারা দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

দেশে ফেরার টিকেট নিতে দূতাবাসে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানান, দীর্ঘদিন পর জরিমানা ছাড়া দেশে ফেরত যেতে পেরে তারা অনেক আনন্দিত। আবার অনেক প্রবাসী জানান, অবৈধ প্রবাসীদের দেশে না পাঠিয়ে দুই দেশের কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে বৈধ করার ব্যবস্থা করতে পারলে তাদের জন্য ভালো হতো, বাংলাদেশের রেমিট্যান্স আরও বাড়তো।

সূত্র : বিডি নিউজ, ২১ জুলাই ২০১৮