ঢাকাস্থ কিশোরগঞ্জ জাতীয়তাবাদী ছাত্র ফোরামের প্রীতি ফুটবল অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি ।।

গতকাল (২৭ জুলাই ২০১৮) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে হয়ে গেল ঢাকাস্থ কিশোরগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী ছাত্রফোরামের এক ফুটবল প্রীতি ম্যাচ। ম্যাচটি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভেতরের মাঠে সকাল ৭টায় অনুষ্ঠিত হয়।

ম্যাচে সংগঠনের সভাপতি কিরন গ্রুপ বনাম সাধারণ সম্পাদক রফিক গ্রুপ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে খেলা হয়। সিনিয়র সহ-সভাপতি হাফিজুল্লাহ হীরা ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করেন।

সভাপতি কিরণ গ্রুপের উল্লেখযোগ্য খেলেয়াড়- কিরণ, চন্দন, মাহমুদ, আলভী, সাদেক, রাজীব, রাকিব, আমিনুল প্রমুখ। সাধারণ সম্পাদক রফিক গ্রুপের উল্লেখযোগ্য খেলোয়াড়- রফিক, দ্বীন ইসলাম, সাজ্জাদ, বাপ্পী, রিজবী, আশিক, নাজমুল, ছাবেদ প্রমুখ।

৫-৩ গোলে জয়লাভ করে সাধারণ সম্পাদক রফিক গ্রুপ। বিজয়ী দলের হয়ে একটি করে গোল করেন রফিক, আশিক, ছাবেদ, ২ গোল এবং ৩টি গোলের এসিস্ট করেন সাজ্জাদ শুভ। পরাজিত দলের হয়ে ২ গোল করেন রাকিব এবং ১ গোল চন্দনের।

ম্যাচ শেষে সংগঠনের সভাপতি কুতুব উদ্দীন কিরণের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মীরের সঞ্চালনায় সিনিয়রদের সমন্বয়ে পুরস্কার প্রদান করা হয়। সিনিয়র প্রত্যেকেই খেলা শেষে আলোচনায় গুরুত্বপূর্ণ ও দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন।

যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ ভুইয়া এবং আলভী হাসান বলেন, এরকম একটি আনন্দময় দিন সত্যিই আমাদের খুবই ভালো লেগেছে। সকল ভাই-ব্রাদার একসাথে হয়ে ম্যাচটি খেলেছি, উপভোগ করেছি। অসাধারণ একটি দিন কাটলো আজ। সবাইকে ধন্যবাদ।

সিনিয়র সহ-সভাপতি হাফিজুল্লাহ হীরা বলেন, আজকের খেলাটা যারা মিস করেছেন তারা অনেক কিছু মিস করেছেন। খুবই সুন্দর, আনন্দময় একটি দিন ছিলো উপস্থিত সকলের। আমাদের মা জেলে,আমাদের আনন্দ-ফূর্তির সময় এখন না। আমরা ভবিষ্যৎ এ সবাই এক হয়ে আমাদের মা’কে মুক্তির জন্যে লড়ে যাব।

সংগঠনের সভাপতি কুতুব উদ্দীন কিরণ ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মীর তাদের বক্তব্যে বলেন, সকল ভাই-ব্রাদার এত সকালবেলায় কষ্ট করে মাঠে এসে খেলেছ এবং উপভোগ করেছ। তোমাদের সবাইকে অশেষ ধন্যবাদ। ভবিষ্যতে আমরা রাজনীতির পাশাপাশি আরো শিক্ষামূলক, বিনোদনমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাব এই সংগঠনের মাধ্যমে। তবে আমাদের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে আমাদের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বেগবান করা। সবাইকে অনুরোধ রইল প্রত্যেকে প্রত্যেকের জায়গা থেকে আমাদের মায়ের মুক্তির জন্যে আন্দোলন চালিয়ে যাও।

সবশেষে সিনিয়র সদস্যদের সমন্বয়ে খেলায় অংশগ্রহণকারী সক খেলোয়াড়কে মেডেল, সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ম্যান অব দ্য ম্যাচ এবং বিজয়ী দলকে ট্রফি তুলে দেয়া হয়।