যেসব আলোচিত ব্যক্তির মনোনয়নপত্র বাতিল হলো

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

বাংলাদেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিযোগিতার জন্য যেসব প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সেগুলো আজ যাচাই-বাছাই করা হয়েছে। প্রার্থীদের দাখিল করা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা শেষে রিটার্নিং অফিসার অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন। যেসব আলোচিত প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে তাদের সম্পর্কে নিচে তুলে ধরা হলো। তবে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে তারা নির্বাচন কমিশনে আপিল করার সুযোগ পাবেন।

খালেদা জিয়া
দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে ফেনী-১ আসনে। বগুড়া-৬ এবং বগুড়া-৭ আসনে খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রও বাতিল হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ জানিয়েছে, দুর্নীতির মামলায় যাদের দুই বছরের বেশি সাজা হয়েছে তারা নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

কাদের সিদ্দিকী
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। মি: সিদ্দিকীর দল ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট-এর অন্যতম শরীক দল। মি: সিদ্দিকী টাঙ্গাইলের একটি আসন থেকে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন।

রুহুল আমিন হাওলাদার
জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে রিটার্নিং অফিসার। তিনি পটুয়াখালী-১ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। ঋণখেলাপি হওয়ার জন্য তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

এম মোর্শেদ খান
বিএনপি নেতা এম মোর্শেদ খান চট্টগ্রামের বোয়ালখালী আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার কারণে তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং অফিসার।

গোলাম মাওলা রনি
পটুয়াখালী-৩ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং অফিসার। পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান, “হলফনামায় প্রার্থীর স্বাক্ষরে একজন আইনজীবীর প্রত্যয়ন দরকার হয়। তার হলফনামায় স্বাক্ষরও ছিল না এবং যেই আইনজীবীর নাম উল্লেখিত ছিল তাকে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি।”

আফরোজা আব্বাস
ঢাকা-৯ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন বিএনপি নেতা মীর্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস। প্রথমে তাঁর মনোনয়নপত্র স্থগিত করেছিলেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। ঋণখেলাপি হবার কারণে তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম
বগুড়া-৪ আসনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন নেয়া আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে। বগুড়ার রিটার্নিং অফিসার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নির্বাচনী আসনের মোট ভোটারের ১ শতাংশের সমর্থনের প্রমাণ হিসেবে ওই ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর সম্বলিত যেই পত্র মনোনয়নপত্রের সাথে জমা দিতে হয়, তা প্রদান করতে ব্যর্থ হওয়ায় মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে মি. আলমের।

রেজা কিবরিয়া
হবিগঞ্জ-১ আসন থেকে গণফোরাম মনোনীত প্রার্থী ছিলেন আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়ার ছেলে রেজা কিবরিয়া; তার মনোনয়নপত্রও বাতিল হয়েছে। ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ডের পাওনা বাকি থাকায় মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে মি. কিবরিয়ার।

ইমরান এইচ সরকার
কুড়িগ্রাম-৪ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জমা দেয়া গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে। কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক পারভিন সুলতানা জানান, “মনোনয়নপত্রের সাথে ১% সমর্থকের সমর্থনের প্রমাণ দাখিল করতে না পারায় মি. সরকারের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।”

যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে তাদের সবাই বলেছেন, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তারা আপিল করবেন। মনোনয়ন বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আগামী তিনদিন নির্বাচন কমিশনে আপিল করতে পারবেন।

সূত্র : বিবিসি বাংলা, ২ ডিসেম্বর ২০১৮