বিজিবি ক্যাম্পের ফসলাদি নষ্টের অভিযোগে গরুর হাজতবাস!

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

গবাদিপশু আটকে খোয়ারে দেয়ার কথা প্রায়ই শোনা যায়। কিন্তু ঠাকুরগাঁওয়ে ঘাস খাওয়ার অপরাধে থানায় জায়গা হয়েছে একটি গরুর। গরুটিকে ফেরত পেতে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মালিক বিধবা মরিয়ম বেগম। কিন্তু কেউ বিষয়টির সুরাহা করছেন না।

শনিবার (৫ জানুয়ারি ২০১৯) বিকেলে ঠাকুরগাঁও বিজিবি ক্যাম্পের ভেতরে ঘাস ও ফসলাদি নষ্টের অভিযোগে গরুটিকে আটক করে থানায় দিয়েছে বিজিবি কর্তৃপক্ষ। আটক গরুটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে বলে জানান ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আতিকুর রহমান।

গরুটিকে ফেরত পেতে থানায় ও স্থানীয় নেতাদের কাছে সাহায্য চেয়েও কোনো লাভ হয়নি বলে জানান বিধবা মরিয়ম বেগম।

তিনি বলেন, একটি পশুর যদি জ্ঞানশক্তি থাকতো তাহলে কি আর অন্যখানে গিয়ে ঘাস ও ফসল নষ্ট করত! আমি বার বার অনুরোধ করার পরেও বিজিবি আমার কথা শুনেনি। তারা আমার কাছে ক্ষতিপূরণের জন্য মোটা অংকের টাকা চায়। আমি টাকা না দিতে পারায় বিজিবির এক সদস্যের পা পর্যন্ত ধরেছি। কিন্তু তারপরও গরুটিকে থানায় দেয় তারা। এখন থানা পুলিশ গরুটিকে ছাড়ছে না। এখন কিভাবে গরুটিকে ফেরত পাবো তার কোন উপায় খুঁজে পাচ্ছি না।

ঠাকুরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, বিজিবি কর্তৃপক্ষ ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে গরুটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। বিজিবি যদি অভিযোগ তুলে নেয় তাহলে গরুটিকে ফেরত দেয়া হবে।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, আমি বিষয়টি অবগত নই। এ সময় বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান তিনি।

গরুটিকে আটকে থানায় দিয়েছে বিজিবি

সূত্র : সমকাল, ৬ জানুয়ারি ২০১৯