স্মার্ট ব্যক্তিরা যেভাবে ধ্বংস করে নিজের ক্যারিয়ার

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

স্মার্ট কর্মচারী হওয়ায় যেসব কারণে আপনি ওপরে যেতে পারেন আপনার সহকর্মীদের টপকে, সেই একই কারণে আপনি ধপ করে নিচে পড়ে যেতে পারেন করপোরেট সিঁড়ি থেকে। প্রকৃতপক্ষে, স্মার্ট কর্মচারীরাই বোকার মতো ভুল করেন বেশি এবং নিজের সাফল্যের মূলে আঘাত করেন। যেসব কারণে এমনটি ঘটে তা নিচে তুলে ধরা হলো:

১। সম্পর্ক গঠন
স্মার্ট লোকদের ভেতর সহকর্মীদের দক্ষতাকে তাচ্ছিল্য করার প্রবণতা বেশি। এই প্রবণতা দল গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সামাজিক দক্ষতার অভাবের বিষয়টি স্পষ্ট করে। তারা সবসময় চেষ্টা করেন নিজেদেরকে উচ্চমানের স্ট্যান্ডার্ডের মধ্যে রাখতে। যখন তারা দেখেন তাদের সহকর্মীরা তাদের গতির সঙ্গে মিলতে না পারছেন না তখন তারা হতাশ হয়ে পড়েন।

২। কাজের প্রতিনিধিত্ব
স্মার্টরা বেশিরভাগই নিজস্ব পথে কাজ করতে পছন্দ করেন এবং সহকর্মীদের সঙ্গে কাজের বিষয়টি ভাগাভাগি করা কঠিন বলে মনে করেন। কখনো কখনো মনে করেন প্রকল্পটি তারা একাই চালাতে পারেন এবং তাদের সহকর্মীদের কাছ থেকেও যে শেখার রয়েছে তা অস্বীকার করেন।

৩। সহজে অস্বস্তিতে ভোগেন
স্মার্টদের বেলায় কর্মস্থল বা প্রজেক্টের কাজ ভালোভাবে সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে কিংবা সেখান থেকে অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের বিষয়টি বেশিরভাগই হতাশাজনক। একটি কাজ থেকে অপরটিতে কেবল লাফানোর প্রবণতা তাদের ভেতর বেশি। প্রায়ই তাদের ভেতর ধৈর্য ও স্থিতির অভাব থাকে।

৪। কাজে ভুল করার প্রবণতা
কিছু মানুষ আছে যারা কার্যনির্বাহের চেয়ে বিষয়টি নিয়ে চিন্তা ও বিশ্লেষণের পেছনে বেশি সময় ব্যয় করেন। তারা বিষয়টির পরিপূর্ণতা অর্জন করতে বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু তারা বিষয়টি উপলব্ধি করতে ব্যর্থ হন যে কাজটি সঠিক সময়ের ভেতর শেষ করা বেশি জরুরি।

৫। সাধারণ ভুল
স্মার্টরা তাদের কাজের ব্যাপারে অহংকারী হয়ে ওঠে। তারা প্রায়ই ভুল পথে কাজটি শুরু করেন। যখন অন্য সহকর্মীরা কোনো সমস্যার জন্য অপেক্ষাকৃত ভালো পদ্ধতির পরামর্শ দেন বা কেউ তাদের কাজ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তখন বিষয়টিকে তারা আত্মসম্মানে আঘাত বলে মনে করেন। তারা যেমন নিজেদের ভুলগুলো ধরতে পারেন না তেমনি অন্যের কাছ থেকে সমালোচনামূলক প্রতিক্রিয়া গ্রহণ করতে পারেন না।

৬। সর্বদা স্মরণযোগ্য
স্মার্টনেস মানেই কিন্তু সাফল্য নয়। স্মার্ট হলে করপোরেট বিশ্বে তা সাহায্য করে কিন্তু সাফল্যের জন্য কোনো শর্টকাট বলে কিছু নেই। কঠোর পরিশ্রমকে কেউ এড়াতে পারেন না। কিছু লোক রাতারাতি সাফল্য চান। কিন্তু সফলতার জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক মনোভাবসহ ধৈর্য ও দৃঢ়তা।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া