পুলেরঘাটে রঙ মেশানো “গুড়ের জিলাপি”র হোটেলকে জরিমানা

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

নামে গুড়ের জিলাপি হলেও জিলাপি তৈরির উপাদানে নেই গুড়। চিনির সাথে ক্ষতিকর রং মিশিয়ে বানানো হচ্ছে গুড়ের রং। আর ক্ষতিকর রংমিশ্রিত চিনি দিয়ে তৈরি জিলাপি বিক্রি করা হচ্ছে “গুড়ের জিলাপি” নামে। সোমবার (৪ মার্চ ২০১৯) জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে পাকুন্দিয়া উপজেলার পুলেরঘাট বাজারে ধরা পড়ে এমন প্রাণঘাতী প্রতারণার বিষয়টি।

অভিযানের সময় পুলেরঘাট বাজারের স্টার রেস্টুরেন্ট এন্ড সুইটস-এ ক্ষতিকর রংমিশ্রিত চিনি দিয়ে “গুড়ের জিলাপি” তৈরির বিষয়টি হাতেনাতে ধরা পড়ার পর রেস্টুরেন্টটিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কিশোরগঞ্জের সহকারী পরিচালক মো. ইব্রাহীম হোসেন।

বাজার তদারকি কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এদিন (৪ মার্চ ২০১৯) তিনি কটিয়াদী উপজেলায়ও অভিযান পরিচালনা করেন। কটিয়াদী উপজেলা সদরে পরিচালিত এই অভিযানে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ, খাদ্য ও পণ্য এবং কসমেটিক্স বিক্রির অপরাধে তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোট ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এর মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ বিক্রির অপরাধে কটিয়াদী উপজেলা সদরের ফেরদৌস মেডিক্যাল হলকে পাঁচ হাজার টাকা, মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্য ও পণ্য বিক্রির অপরাধে মতিউর রহমান স্টোরকে তিন হাজার টাকা এবং মেয়াদোত্তীর্ণ কসমেটিক্স বিক্রির অপরাধে মিতালী কসমেটিক্সকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কিশোরগঞ্জের সহকারী পরিচালক মো. ইব্রাহীম হোসেন জানান, কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশের সহযোগিতায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর শংকর চন্দ্র পাল ও কটিয়াদী পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. দিদারুল আলম উপস্থিত ছিলেন। জনস্বার্থে এই অভিযান চলমান থাকবে।

সূত্র : কিশোরগঞ্জ নিউজ