আল মাহমুদ তাঁর কালজয়ী সাহিত্যের জন্যে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন

নিজস্ব প্রতিনিধি ।।

পথিক সাহিত্য পরিবারের আয়োজনে বাংলা সাহিত্যের কালজয়ী কবি আল মাহমুদের স্মরণসভা ২৯ মার্চ বিকেলে পথিক টিভির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আলোচনায় কবি অধ্যাপক মহিবুর রহিম বলেন- পঞ্চাশের দশকের এক ভিন্ন মাত্রার অনন্য সাধারণ কবি আল মাহমুদ। যিনি বংলা সাহিত্যে একটি কালজয়ী অধ্যায় সৃষ্টি করেছেন। তাঁর কবিতা ও কথাসাহিত্যের জন্যে তিনি চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। বাংলা সাহিত্যের বিশিষ্ট আলোচকগণ স্বীকার করেছেন আল মাহমুদ বাংলা কবিতায় অসাধ্য সাধন করেছেন। লোক-লোকান্তর থেকে শেষ কাব্যগ্রন্থটি পর্যন্ত তিনি সমান সপ্রাণ ছিলেন। এটি খুব কম কবিদের ক্ষেত্রেই ঘটেছে। কথাসাহিত্যেও তিনি তার অনন্য সৃজনশীলতার স্বাক্ষর রেখেছেন। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে সার্থক সাহিত্য সৃষ্টি করেছেন। যা নিয়ে আমরা গর্ব করতে পারব।

সাংবাদিক জাকির হোসেন জিকুর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পথিক টিভির চেয়ারম্যান প্রভাষক রাবেয়া জাহান, কথা সাহিত্যিক সাদমান শাহিদ, সাহিত্যিক সালাহ উদ্দিন, এডভোকেট শেখ জাহাঙ্গীর, কবি গোলাম মোহাম্মদ মোস্তফা, শেখ নাজমীন আক্তার, হালিমা খানম, মেহেরুন্নেছা ঝুমু, তানজিম হাসান শামীম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা আরও বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী হিসেবে আমরা গর্বিত। কেননা আল মাহমুদের মতো একজন বড় কবি এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাটিতে জন্মেছেন যিনি শুধু বাংলাদেশ নয়, সমগ্র বিশ্ব দরবারে সমাদৃত। বাংলা সাহিত্যে রবীন্দ্রনাথ, কাজী নজরুল ইসলামের পর আল মাহমুদ একমাত্র কবি যার লেখায় সম্পূর্ণ ভিন্ন মাত্রার বৈশিষ্ট্য পরিলক্ষিত হয়, যা তার কাব্যগ্রন্থ সোনালি কাবিন, লোক লোকান্তর এবং উপন্যাস উপমহাদেশ, আগুনের মেয়ে, নিশিন্দার নারী, কাবিলের বোন পাঠ করলে স্পষ্ট প্রতিয়মান হয়। খ্যাতনামা এই কবির শ্রদ্ধায়, শুধু বাংলাদেশে নয়, ভারত, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সমাপনী বক্তব্য রাখেন পথিক টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিটন হোসাইন জিহাদ।

Similar Posts

error: Content is protected !!