স্থগিত হওয়া কটিয়াদী উপজেলার নির্বাচন ১৮ জুন

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

নানা অনিয়মের অভিযোগে স্থগিত হওয়া কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আগামী ১৮ জুন অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার (২২ মে ২০১৯) নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্বাচন পরিচালনা-২ এর উপসচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত চিঠিতে ১৮ জুন কটিয়াদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়।

নির্বাচন কমিশন থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারের কাছে পাঠানো হয়েছে। বিকেলে কিশোরগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কটিয়াদী উপজেলায় মোট ভোটার ২ লাখ ৩০ হাজার ৪২২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১৩ হাজার ৬১৮ জন এবং নারী ভোটার ১ লাখ ১৬ হাজার ৮২২ জন রয়েছেন।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন।

কটিয়াদী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সহ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তানিয়া সুলতানা হ্যাপী (নৌকা), জাকের পার্টির প্রার্থী শহীদুজ্জামান স্বপন (গোলাপ ফুল), আওয়ামী লীগের তিন বিদ্রোহী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান লায়ন আলী আকবর (দোয়াত-কলম), আওয়ামী লীগ নেতা আলতাফ উদ্দীন (মোটর সাইকেল) ও ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান (ঘোড়া) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার আনার (আনারস)।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থী হলেন- রেজাউল করিম শিকদার (তালা), বকুল মিঞা (টিউবওয়েল), সদরুল হক (বৈদ্যুতিক বাল্ব), মজিবুর রহমান (টিয়া পাখি), মো. কামরুজ্জামান (মাইক) এবং আবুল কালাম (উড়োজাহাজ)।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থী হলেন- সাথী বেগম (কলস), রোকসানা (ফুটবল) এবং মোসাম্মত নওরীন সুলতানা (হাঁস)।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে কটিয়াদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন গত ২৪ মার্চ সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এরপর বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আগেই ভোট দেওয়ার খবর আসতে থাকার পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলার ৮৯টি কেন্দ্রের সবকটিতে ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম।

এছাড়া দায়িত্ব পালনে অবহেলার অভিযোগে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শফিকুল ইসলাম এবং কটিয়াদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সামসুদ্দীনকে প্রত্যাহার করা হয়।

একই সঙ্গে ২৪ মার্চ উপজেলা নির্বাচনে কটিয়াদী, ভৈরব ও বাজিতপুরের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন। পরে ১৭ এপ্রিল বাজিতপুর ও ভৈরবে পুনঃনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

 

সূত্র : বাংলানিউজ