করিমগঞ্জে শিশু অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় চারজনের যাবজ্জীবন

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শিশু অপহরণ ও গণধর্ষণ মামলায় চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। একই মামলায় অপহরণের অভিযোগে আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সাজা দেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক কিরণ শংকর হালদার মঙ্গলবার (৯ জুলাই ২০১৯) আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- করিমগঞ্জ পৌরসভার আশুতিয়াপাড়া গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে সুমন (২৪), কান্তু মিয়ার ছেলে ফারুক (২৬), কাশেমের ছেলে রুমন (২২) ও সোনা মিয়ার ছেলে হেলাল (২৮)।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০১৫ সালের ১১ মে করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য প্রকল্পে চিকিৎসাধীন মা’কে দেখে বাবা ও চাচার সাথে রিকশায় করে পাশ্ববর্তী তাড়াইল উপজেলার করাতি গ্রামের বাড়ি ফিরছিল ওই মেয়েটি (১১)। পথে করিমগঞ্জ উপজেলার রামনগর শাহআলী মাজার এলাকায় পৌঁছলে রাত সাড়ে ১২টার দিকে আসামিরা তার আত্মীয়-স্বজনকে মারপিট করে অস্ত্রের মুখে মেয়েটিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। শেষরাতের দিকে পালাক্রমে ধর্ষণের পর মেয়েটিকে রক্তাক্ত ও অচেতন অবস্থায় একটি ব্রিজের পাশে ফেলে রাখা হয়। আহত অবস্থায় তাকে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় পরদিন মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে চারজনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ১৩ নভেম্বর আদালতে অভিযোপত্র দাখিল করেন।

সূত্র : জাগো নিউজ