ধামইরহাটে ডাক্তারের নেতৃত্বে জমি দখল নিয়ে সংঘর্ষ

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি ।।

নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার গাংরা গ্রামের সরকারি ডাক্তার মাজেদুর রহমান দায়িত্ব পালন না করে জমি দখল বজায় রাখার জন্য নিজেই নেতৃত্ব দিয়ে মারামারি করেছেন। তাদের হামলায় আহত তিনজন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ওই গ্রামে প্রতিষ্ঠিত মহিলা আলিম মাদ্রাসার একটি জমি আলোচিত আলোচিত ডাক্তার নিজের বলে দাবি করে আসছিলেন। সম্প্রতি তিনি আরেকটি পীরোত্তর জমি ভরাট করলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ক্বারী আব্দুল জলিল অভিযোগ করলে ওয়াক্ফ প্রশাসক ডাক্তার মাজেদুর রহমানসহ অন্যান্য দখলদারকে উচ্ছেদের আদেশ দেন। গতকাল সার্ভেয়ার ইমদাদুল হক জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সরেজমিন তদন্তে আসেন।

এ সময় ডাক্তার মাজেদুর রহমান স্থানীয় এবং বহিরাগত লোক জমায়েত করেন। পরে পীরোত্তর ওই জমির কেয়ারটেকার ওমর আলী সেখানে উপস্থিত হলে সার্ভেয়ারের উপস্থিতিতে ডাক্তার মাজেদুর রহমান ও মহাদেবপুর উপজেলার আব্দুল ওহাবের নেতৃত্বে তার ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। পরে ওমর আলীর আত্মীয়-স্বজন এগিয়ে আসলে উভয় পক্ষে সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় ওমর আলী, আব্দুল ওহাবসহ ৩ জন আহত হন।

ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ইমদাদুল হক বলেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশ মোতাবেক তিনি ঘটনাস্থলে তদন্ত করতে যান। সে সময় মারামারির ঘটনা ঘটে। তিনি এ সময় ডাক্তার মাজেদুর রহমানের উপস্থিতি নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাকিরুল ইসলাম বলেন, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠিয়েছি। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

ডা. মাজেদুর রহমানের কাছে জমি দখলের অভিযোগ ও কর্মস্থলে উপস্থিত না থেকে মারামারিতে অংশ নেওয়া বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোন কেটে দেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) হাবিবুর রহমান খান বলেন, একজন ডাক্তার হিসেবে বর্তমান পরিস্থিতিতে তার কর্মস্থলে উপস্থিত থাকা নৈতিক দায়িত্ব। তার বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে অপরাধের সত্যতা পেলে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Similar Posts

error: Content is protected !!