বগুড়ার বারোপুরে স্ত্রীকে ছুরিতে হত্যা, আটক স্বামী

মহাস্থান (বগুড়া) প্রতিনিধি ।।

বগুড়ার শহরতলির সদর উপজেলার বারোপুর মধ্যপাড়া গ্রামে স্ত্রীর সঙ্গে কলহের জেরে পেটে ধারালো ছুরির আঘাতে মায়া খাতুনকে (১৮) হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ঘাতক স্বামী রাকিবুলকে আটক করেছে সদর পুলিশ।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বগুড়া সদর উপজেলার বারোপুর মধ্যপাড়া এলাকার আবু জাফরের ছেলে রাকিবুল হাসানের সাথে প্রায় এক বছর আগে শিবগঞ্জ উপজেলার পৌরঘাট এলাকার তোজাম্মেল ওরফে বিশার মেয়ে মায়া খাতুনের বিয়ে হয়। রাকিবুল বগুড়া পৌরসভায় মাস্টার রোলে পরিচ্ছন্নতার কাজ করে। বিয়ের পর থেকেই নানা বিষয়ে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো।

অন্যান্য দিনের মতো গত মঙ্গলবার রাত প্রায় সাড়ে ১২টায় তারা আবারো ঝগড়া কাণ্ডে লিপ্ত হয়। একপর্যায়ে স্বামী স্ত্রীর বিবাদমান সংঘর্ষের রূপ নেয়। এতে স্বামী রাকিবুল ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে স্ত্রীর পেটে আঘাত করে। এ সময় স্ত্রী মায়া চিৎকার দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে শাশুড়িসহ প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে টিএমএসএস রফাতুল্লাহ্ কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ৩ ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করে চিকিৎসায় সহযোগিতা করে। কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও তাকে বাঁচানো যায়নি। বুধবার সকাল ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার তার মৃত্যু হয়। সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ তখন থেকেই রাকিবুলকে খুঁজছিলো। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে শহরের মাটিডালি এলাকায় অভিযান চালিয়ে সেখান থেকে তাকে আটক করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাকিবুল স্ত্রী হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। পরে তার দেয়া তথ্যানুযায়ী তাদের বাড়ির পাশ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।