খাগড়াছড়িতে ক্রিম ব্যবহারে ঝলসে গেলো তরুণীর মুখ

আমাদের নিকলী ডেস্ক ।।

কম বেশি সবাই নিজেকে সুন্দর দেখতে চায়। সাধ্যের সবটুকু দিয়ে নিজের চেহারাকে একটু সাজিয়ে তুলতে চায় সবাই। তবে অনেক সময় সচেতনতার অভাবে মেয়াদোত্তীর্ণ কিংবা নকল প্রসাধনী কাল হয়ে দাঁড়াতে পারে। তেমনই এক ঘটনা খাগড়াছড়িতে।

বাইরের তৈরি ত্বক ফর্সা করা ক্রিম ব্যবহার করে মুখ ঝলসে গেছে লিকতি ত্রিপুরা (২০) নামের এক তরুণীর।

বর্তমানে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এ তরুণীর পুরো মুখ ঝলসে যাওয়ায় ভালো করে কথাও বলতে পারছেন না তিনি। কিছু খেতে না পারার কারণে নাক দিয়ে তরল খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে তাকে।

লিকতি খাগড়াছড়ির নুনছড়ির থলিপাড়া এলাকার বিময় ত্রিপুরার মেয়ে।

জানা যায়, স্থানীয় মাইসছড়ি বাজার থেকে লিকতি চায়নার তৈরি ক্রিমটি কিনে। সপ্তাহখানেক সেটি ব্যবহার করার পর তার চেহারায় পরিবর্তন ঘটে। চেহারায় আস্তে আস্তে ফোসকা ফোটে, জ্বালা-যন্ত্রণা করতে থাকে।

পরে অবস্থা আরও খারাপ হয়ে গেলে তাকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তার পুরো চেহারা ঝলসে গেছে। চোখের পাতা থেকে ঠোঁট সবটাই ঝলসে গেছে।

এদিকে লিকতির পরিবারে চিকিৎসা চালানোর মতো অবস্থা না থাকায় হাসপাতালের চিকিৎসকসহ অন্যরা এগিয়ে এসেছেন।

খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. নয়ন ময় ত্রিপুরা বলেন, তার পুরো চেহারা ঝলসে গিয়ে চামড়া ছিড়ে গেছে। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। অবস্থার পরিবর্তন না হলে চট্টগ্রাম মেডিক্যালে পাঠানো হবে।

এসব ক্রিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবাইকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন এ চিকিৎসক।

সূত্র : বাংলানিউজ২৪