ধামইরহাটে ফসলি জমিতে মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি ।।

নওগাঁর ধামইরহাটে বসতবাড়ী ও জনমানবহীন আবাদী তিন ফসলি জমিতে মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স ও সাংস্কৃতিক চর্চাকেন্দ্র নির্মাণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যবৃন্দ। ০৮ নভেম্বর বিকেল ৩টায় নুরজাহান কমপ্লেক্স ভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ক্ষতিগ্রস্ত ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে মৃত আব্দুল গণির ছেলে মো. শহীদুল ইসলাম।

এ সময় তিনি বলেন, বিহারীনগর মৌজার, জে,এল নং-১০৩, খতিয়ান নম্বর-০৭, দাগ নং-৯৮ এ ধানী শ্রেণির জমির মূল মালিক মরহুম আছির উদ্দিন মন্ডল, তার ওয়ারিশসূত্রে প্রাপ্ত ওই মৌজায় ৪৩ শতাংশ জমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আমাদের সাথে কোনরুপ কথাবার্তা না বলেই নওগাঁ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা ২৭/১০/১৯ ইং তারিখে ভূমি অধিগ্রহণের নোটিশ জারী করেন।

৫ নভেম্বর নোটিশ হাতে পেয়ে জমির মালিক আছর উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আব্দুস সোবহান, ওয়ারিশ হিসেবে আমি শহীদুল ইসলাম, মোসা. মনিজা. আবু নাসের রঞ্জুসহ আমরা ওয়ারিশগণ নওগাঁ ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা বরাবর হুকুম দখল স্থগিতের আবেদন করছি। তিনি আরও উল্লেখ করেন, ধামইরহাট পত্নীতলা সড়কে প্রায় ৩ একর ও ধানতাড়া সড়কে ১ একর সম্পত্তি রাস্তা নির্মাণের জন্য সরকার অধিগ্রহণ করেছিল, যাতে আছর উদ্দীন মন্ডল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন বটে। তাই সম্মেলনে ভুক্তভোগী ৩ ফসলী জমিতে স্থাপনা নির্মাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিষেধ রয়েছে উল্লেখ্য করে ভুক্তভোগীরা ওই ৪৩ শতাংশ জমি অধিগ্রহণ স্থগিত এবং মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র উপজেলা সদরে নির্মাণের দাবী জানান।

এ সময় ধামইরহাট উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।