চরফ্যাশন ও তজুমদ্দিনে ভূমি ব্যবস্থাপনায় তথ্য-প্রযুক্তি প্রয়োগ শীর্ষক প্রশিক্ষণ প্রদান

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

উপজেলা পর্যায়ে ভোলার দুই উপজেলার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সমন্বয়ে ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবায় ইনফরমেশন টেকনোলোজির প্রয়োগ শীর্ষক চারদিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কোর্স শুরু হয়েছে। ১৫ জুন ২০২০ সোমবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এ প্রশিক্ষাণ কর্মসূচি শুরু হয়। বরিশাল বিভাগের মূল এবং খুলনা বিভাগের অতিরিক্ত দায়িত্বে নিয়োজিত উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার তরফদার মোঃ আক্তার জামীল এ প্রশিক্ষণ কমর্সূচির উদ্বোধন করেন। কর্মসূচিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চরফ্যাশন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিন, তজুমদ্দিন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আল-নোমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চরফ্যাশন উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ শাহীন মাহমুদ।

প্রশিক্ষণে ভূমি ব্যবস্থাপনায় তথ্য প্রযুক্তির প্রয়োগ, ভূমি তথ্য সেবা ও কাঠামো, ই-মিউটেশন, ইউনিয়ন ও উপজেলা ভূমি অফিসের রেজিস্টার সংরক্ষণ ও হালনাগাদকরণ, নামজারি রিভিউ ও মিস মোকদ্দমা, ভূমি উন্নয়ন কর আদায় ও প্রতিবেদন প্রেরণ, রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা, খাসজমি ও সায়রাত মহল ব্যাবস্থাপনা, এসএফ লিখন পদ্ধতি, উত্তরাধিকার সম্পর্কিত সংশ্লিষ্ট বিধি-বিধান প্রভৃতি সম্পর্কে প্রশিক্ষণার্থীদের ধারণা প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, ভূমি ব্যবস্থাপনায় ও ভূমি সেবায় ইনফরমেশন টেকনোলজি ব্যবহারের মাধ্যমে সেবাগ্রহীতাদের দ্রুত সেবা প্রদান করতে হবে। জনদুর্ভোগ ও হয়রানি বন্ধ করতে হবে। সরকার সে লক্ষ্যে কাজ করছে। ভূমির সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেজন্য দক্ষ করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি পরিচালনা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ভূমি অফিসগুলোতে জনসেবার কার্যক্রম বেগবান করতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই। এ লক্ষ্যে ভূমি ব্যবস্থাপনা ও ভূমি সেবাকে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনার জন্য ভূমি মন্ত্রণালয় এবং ভূমি সংস্কার বোর্ড নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ভূমি ব্যবস্থাপনাকে আধুনিকায়নের লক্ষে ল্যান্ড ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এলআইএমএস) প্রণীত হয়েছে। দেশের সবক’টি জেলায় ই-মিউটেশন চালু করা হয়েছে যার সুফল জনগণ পেতে শুরু করেছে। ভূমি উন্নয়ন করের দাবী নির্ধারণ ও আদায় পদ্ধতি অনলাইনভিত্তিক করার কার্যক্রমও চলমান রয়েছে। এছাড়া ভূমি সংক্রান্ত সেবা সহজ করতে সারাদেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবা প্রদান পদ্ধতিকে অটোমেশনের আওতায় আনার কাজ চলছে। এ সকল কার্যক্রমের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয় এ বছর জাতিসংঘ পুরস্কারও অর্জন করেছে।

তিনি আরও বলেন, ভূমি সেবা অনলাইনে সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দক্ষতা বৃদ্ধির প্রয়োজনিয়তা রয়েছে। সেলক্ষ্যে এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি পরিচালনা করা হচ্ছে। তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের মনোযোগ সহকারে প্রশিক্ষণ গ্রহণের নির্দেশনা দেন। এছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি রিসোর্স পার্সন হিসেবেও চারটি সেশন পরিচালনা করেন।

উল্লেখ্য, ভোলা জেলার চরফ্যাশন ও তজুমদ্দিন এ দু’টি উপজেলার সর্বমোট ২৬ জন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা, সার্টিফিকেট সহকারী, সার্ভেয়ার অফিস সহকারী ও নামজারী সহকারীবৃন্দ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করছেন।