কিশোরগঞ্জে করোনায় নতুন শনাক্ত ১৫, মৃত্যু ২

আল আমিন, বিশেষ প্রতিনিধি ।।

কিশোরগঞ্জের ৪ উপজেলায় নতুন ১৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলার ১৩ উপজেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৬৪৬ জন। সোমবার (৬ জুলাই) রাতে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে ৪ উপজেলার ১৮৮ জনের নমুনার মধ্যে ১৫ জনের করোনা পজেটিভ আসে। এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হলো ২৮ জনের। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪৪ জন। মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ১ হাজার ২৮৮।

“আমাদের নিকলী ডটকম”কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলার সিভিল সার্জন ডা. মো: মুজিবুর রহমান।

নতুন শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৯ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৩ জন, ভৈরব উপজেলায় ২ জন, এবং নিকলী উপজেলায় ১ জন।

সর্বশেষ মারা যাওয়া দুইজনের মধ্যে একজনের বাড়ি নিকলী উপজেলায়। তাঁর বয়স ৬৫ বছর বলে জানা গেছে। তিনি রোববার রাত দুইটার দিকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা যান। অন্যজনের বাড়ি বাজিতপুর উপজেলায়। তিনি ৯০ বছর বয়সী ছিলেন। দুজনই পুরুষ।

সিভিল সার্জন জানান, গত শনি ও রোববার হাসপাতালের প্রি-আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া কয়েকজন রোগীসহ উপজেলাগুলো থেকে সংগ্রহ করা ১৮৮ জনের নমুনা কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়। এতে ১৫ জনের পজেটিভ এবং ১৭৩ জনের নমুনার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

উপজেলাওয়ারী হিসেবে এ পর্যন্ত কোভিড রোগী পাওয়া গেছে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৩৭৫ জন, হোসেনপুরে ৩৬ জন, করিমগঞ্জে ১১০ জন, তাড়াইলে ৭৯ জন, পাকুন্দিয়ায় ৭৬ জন, কটিয়াদীতে ৯৮ জন, কুলিয়ারচরে ১০১ জন, ভৈরবে ৫২৭ জন, নিকলীতে ৩১ জন, বাজিতপুরে ১৩৫ জন, ইটনায় ২৯ জন, মিঠামইনে ৩৭ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১২ জন।

এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৫ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ২ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১ জন, ভৈরব উপজেলায় ১২ জন, নিকলী উপজেলায় ২ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ২ জন ও মিঠামইন উপজেলায় ১ জন মারা যান।

বর্তমানে জেলায় মোট ৩৩১ জন করোনায় আক্রান্ত কোভিড রোগী ও ১১ জন সন্দেহজনক রোগী বিভিন্ন হাসপাতাল ও নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন। এর মধ্যে অন্য জেলায় শনাক্তকৃত ১ জন করোনা পজেটিভ রয়েছেন।

বর্তমানে আক্রান্ত রোগীর উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৯৯ জন, হোসেনপুর উপজেলার ৯ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১৫ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৩ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ১৬ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৪০ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১৪ জন, ভৈরব উপজেলায় ৬৪ জন, নিকলী উপজেলায় ৯ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৪২ জন, ইটনা উপজেলায় ৪ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৭ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ৮ জন বর্তমানে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি রয়েছেন।