বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক পায়ে হাঁটা পথ

নাজমুল হোসেন >>

স্পেনের একটি গ্রামে হাইড্রোইলেকট্রিক প্লান্ট তৈরির জন্য খোরো ও গাইটানেজো নামক দু’টি পাহাড়ি ঝর্ণাকে সংযুক্ত করার লক্ষ্যে মালামাল পরিবহনের জন্য ভূমি থেকে ১০০ মিটার ওপরে পাহাড়ের গা ঘেঁষে রাস্তা নির্মাণ করা হয়। বিশ্বের ব্যতিক্রমী রাস্তাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ও বিপজ্জনক রাস্তা দ্য কিংস লিটল পাথওয়ে।
১৯০১ সালে কাজ শুরু করে ১৯০৫ সালে এই রাস্তার কাজ শেষ হয়েছিল। এরপর পাহাড়ের গা বেয়ে অনেকেই চলাচল করেছেন ব্যতিক্রমী এই রাস্তায়। কনক্রিট আর স্টিলের পাত দিয়ে তৈরী এই রাস্তা এখন খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। অনেক স্থানে কনক্রিট খসে গেছে। এর পরও অভিযাত্রীদের কাছে এখনো খুব জনপ্রিয়। ১৯২১ সালে স্পেনের রাজা ত্রয়োদশ আলফনসো রাস্তাটিতে হাঁটেন। আর তখন থেকে এটি  দ্য কিংস লিটল পাথওয়ে নামে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিতি পেয়েছে।
অবাক করার বিষয় হলো পাহাড়ের গা বেয়ে মাত্র তিন কিলোমিটার দৈর্ঘ্যওে রাস্তাটি এক মিটার চওড়া। রাস্তাটির ১০০ মিটার নিচে নদী রয়েছে। ১৯৯৯ সালে এই রাস্তা অতিক্রম করার সময় দুই অভিযাত্রীর মৃত্যু হয়। আর এই পরিপ্রেক্ষিতে ২০১১ সালে রাস্তাটিকে মেরামত করে মিউজিয়াম ঘোষণা দেয়া হয়। মেরামতের পরেও অধিকাংশ স্থান এখনো ঝুঁকিপূর্ণ।
মূলত পর্বতারোহীরা যে ধরনের রোমাঞ্চ ভালোবাসেন তার পুরোটাই পাবেন দ্য কিংস লিটল পাথওয়েতে। রাস্তাটি বর্তমানে বিশ্বের দুর্গম রাস্তাগুলোর অন্যতম নিদর্শন।

সূত্র : নয়া দিগন্ত